গুজব নয়, সত্যি সত্যিই এমপি নির্বাচন করছেন হিরো আলম!!

গুজব নয়, আমি সত্যি সত্যিই এমপি নির্বাচন করব। একসময় আমাকে সবাই অবহেলার চোখে দেখেছে, অবহেলা থেকেই আমি আজকের হিরো আলম। মানুষের মনে জায়গা পেয়েছি, অবহেলা আমাকে উৎসাহ দিয়েছে। আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া থেকেই আমি প্রার্থী হব। দুইবার নিজ এলাকায় ইউপি সদস্য নির্বাচন করেছি। সামান্য ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছিলাম। দ্বিতীয় স্থানে ছিলাম। সে সময় আমার জনপ্রিয়তা কম ছিল। তারপরেও জনগণের ভালোবাসা আর প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে আমি যা পেয়েছি, সেটা আমার অনেক বড় পাওয়া। নির্বাচিত হতে না পারি, তবে মানুষের ভালোবাসা এবং ভোটারদের মনে জায়গা পেয়েছি।

বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) সময়ের কন্ঠস্বর বগুড়া অফিসে সাক্ষাৎকারকালে এক প্রশ্নের জবাবে হিরো আলম খ্যাত আশরাফুল হোসেন আলম বলেন, সময়ের কন্ঠস্বরের মাধ্যমে এমপি নির্বাচন করার ঘোষনা করেছি। বিভিন্ন ছোট বড় মিডিয়া আমার এমপি নির্বাচনের বিষয়টি ব্যাপকভাবে প্রচার ও প্রকাশিত করেছে। আমি গণমাধ্যমের কাছে কৃতজ্ঞ। গণমাধ্যমের সহযোগিতা না পেলে আমি আজ হিরো আলম হতে পারতাম না।

গত ২৬ আগস্ট সময়ের কন্ঠস্বরকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এমপি প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করার ঘোষনার পর কোনো রাজনৈতিক দলের প্রস্তাব পেয়েছেন কি-না জানতে চাইলে হিরো আলম বলেন, এ পর্যন্ত বড় কোনো রাজনৈতিক দলের প্রস্তাব না পেলেও অনেক সিনিয়র নেতারা আমার সাথে মুঠোফোনে কথা বলেছে। আমার সাথে আলোচনায় বসতে চেয়েছেন। তবে একাধিক ছোট ছোট রাজনৈতিক দল থেকে আমাকে সংসদ সদস্য পদে মনোনয়ন দেয়ার প্রস্তাব দিয়েছে এবং এখানো দিচ্ছে। তারাও আমার সাথে আলোচনায় বসতে চান।

আপনি কোন দলের সমর্থন চান ? এমন প্রশ্নের জবাবে হিরো আলম খ্যাত আশরাফুল হোসেন আলম সময়ের কন্ঠস্বরকে বলেন, ঢাকায় একটি অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ স্যারের সাথে দেখা করেছি, কথাও বলেছি। আবারো দেখা করার প্রস্তুতি নিচ্ছি। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ইউপি সদস্য পদে নির্বাচন করেছি দুইবার। কিন্তু এমপি নির্বাচনে কোনো রাজনৈতিক দলের মনোনয়ন নিয়ে এখুনি ভাবছি না।
কোন কোন রাজনৈতিক দলের প্রস্তাব পেয়েছেন’ এ প্রশ্নে হিরো আলম বলেন, দল বা কারো নাম প্রকাশ করতে চাচ্ছি না।

এরআগে সময়ের কন্ঠস্বরকে দেয়া সাক্ষাৎকারে হিরো আলম বলেছিলেন, জনগণের ভালোবাসা ও প্রত্যক্ষ ভোটে আমি এমপি হতে চাই। মনোবল থেকেই আমার উঠে আসা। চেহারা দেখে মানুষের যোগ্যতার বিচার করা যায় না। প্রতিটি সফলতার ধাপে ধাপে থাকতে হয় প্রতিভা। আমার গর্ব আমি বগুড়ার সন্তান। তাই বগুড়া নিয়েই আমার স্বপ্ন বেশী। বাংলাদেশের প্রথম অভিনেতা (নায়ক) হিসেবে আমি বলিউডে সুযোগ পেয়েছি। সত্যিই এটা স্বপ্নেরমত। মিডিয়া আর জনগণের ভালোবাসায় আমার স্বপ্ন পূরণের পথে। আমি গত ২০১৬ সালের ৪ জুন বগুড়া সদর উপজেলার এরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য প্রার্থী হয়ে ভোটযুদ্ধে দ্বিতীয় স্থানে ছিলাম। এরআগেও নির্বাচন করেছি। যদি নির্বাচন করি, তাহলে এমপি নির্বাচনই করব। জনগণ আমাকে এমপি নির্বাচিত করলে, আমি সংসদে গিয়ে প্রথমে গ্রামের প্রতিভার কথা তুলে ধরার পাশাপাশি রাস্তাঘাট সহ সকল উন্নয়নকল্পেও কথা বলব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *