ক্ষুব্দ মির্জা ফখরুল যে ঘোষণা দিলেন – জেনে নিন বিস্তারিত

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া প্যারোলে যাওয়ার কোনো সিদ্ধান্ত দেননি জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন,

‘প্যারোলে খালেদা জিয়ার বিদেশ যাওয়ার খবর ভিত্তিহীন।’

আজ মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) একাংশের বার্ষিক সাধারণ সভায় এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমি পরিষ্কার করে বলতে চাই, দেশনেত্রী খালেদা জিয়া প্যারোলে চিকিৎসার জন্য যাওয়ার কোনো সিদ্ধান্ত দেননি। দেশনেত্রী খালেদা জিয়া অসুস্থ।

তিনি এখন পিজি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আমরা তাঁর সঙ্গে নববর্ষের দিন দেখা করেছি। কোনো একটি ইংরেজি দৈনিকে নাম ও সময় পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে, কবে যাচ্ছেন তিনি। কোন দেশে যাচ্ছেন। এটা আনফেয়ার।’

বিএনপির মহাসচিব বলেন, কয়েকদিন ধরে এ বিষয়টা পত্রিকায় আলোচনা হচ্ছে, আজকে একটি ইংরেজি পত্রিকা দিন, তারিখসহ দিয়ে দিয়েছে। আমার সঙ্গে কথা বলেছে। আমি বলেছি, এটা বেজলেস। এ সময় তিনি হলুদ সাংবাদিকতা পরিহার করার আহ্বান জানান।

মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, গণমাধ্যম সুপরিকল্পিতভাবে একটা শ্রেণি নিয়ন্ত্রণ করে যাচ্ছে যারা শাসকগোষ্ঠীর ইচ্ছেমতো সমাজ নির্মাণে সহায়তা করছে। এমন একটা ভীতির পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে যাতে করে অনেক জনপ্রিয় লোকেরা টকশোতে আসছেন না। সত্য কথাগুলো নিয়ে জনগণের কাছে যাওয়া কঠিন হয়ে যাচ্ছে। কারণ যারা গণমাধ্যমে কাজ করেন নির্বাচনের পর তাদের বেশ কয়েকজনের চাকরি চলে গেছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, সাংবাদিকদের একটি শ্রেণি ভালো আছে, বেশিরভাগ সাংবাদিকদের চাকরি নেই।

সাম্প্রতিক সময়ে দেশে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, দেশে অরাজকতা চলছে, কোনো জবাবদিহিতা নেই।

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির হত্যাকাণ্ড ও সুবর্ণচরে গণধর্ষণের ঘটনা উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, রাজনৈতিক কারণে ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে।

ভূরাজনীতির কারণে উদার রাজনীতির দর্শন পরাজিত হচ্ছে মন্তব্য করে ফখরুল বলেন, সেখানে ফ্যাসিবাদ জায়গা দখল করছে। রাজনীতি এমন কলুষিত হয়েছে যেখানে ভালো মানুষ রাজনীতিতে টিকতে পারছে না।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, এটা একক লড়াই নয়, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতার জন্য যেমন ঐক্যবদ্ধ হয়েছিলাম তেমনি এখন স্বাধীনতা রক্ষার জন্য ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ভূ-রাজনীতির পরিবর্তন হয়েছে, সেই পরিবর্তন সামনে রেখেই এগোতে হবে।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কাদের গনি চৌধুরীর সভাপতিত্বে বার্ষিক সাধারণ সভায় বক্তব্য দেন সাংবাদিক নেতা শওকত মাহমুদ, রুহুল আমিন গাজী, আব্দুস শহীদ, আব্দুল হাই শিকদার, শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *